জুলাই থেকে মুঠোফোন নিবন্ধন শুরু

আগামী পহেলা জুলাই থেকে নতুন কেনা ও দেশে প্রবেশ করা মুঠোফোনের নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হবে।

ওই দিন থেকে নেটওয়ার্কে যুক্ত হওয়া মুঠোফোনের কোনোটি অবৈধ হলে গ্রাহককে জানিয়ে তিন মাস সময় বেঁধে দেওয়া হবে।

বেঁধে দেওয়া সময়ের মধ্যে মুঠোফোনটি বৈধ করে নিলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সেটি নিবন্ধিত হয়ে যাবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা (বিটিআরসি)।

বিটিআরসি গত ডিসেম্বরে অবৈধ মুঠোফোন বন্ধ ও বৈধ মুঠোফোনের নিবন্ধনে দেশীয় কোম্পানি সিনেসিস আইটির সঙ্গে একটি চুক্তি করে। চুক্তি অনুযায়ী জুলাইয়ের মধ্যেই তারা ন্যাশনাল ইকুইপমেন্ট আইডেন্টিটি রেজিস্ট্রার (এনইআইআর) সিস্টেম চালু করছে।

বিটিআরসি বলছে, এই প্রক্রিয়া শুরু হলে তিন মাস পর অবৈধ মুঠোফোনে কোনো সিমই কাজ করবে না। ফলে গ্রাহকরা বাধ্য হয়েই নকল বা অবৈধ মুঠোফোন ব্যবহার বন্ধ করবেন।

গ্রাহকদের সতর্ক করে বিটিআরসি জানিয়েছে, পহেলা জুলাই থেকে যেকোনো মাধ্যমে মুঠোফোন কেনার আগে অবশ্যই এর বৈধতা যাচাই করতে হবে। সেজন্য একটি পদ্ধতি অনুসরণের পাশাপাশি মুঠোফোনের ক্রয় রসিদ সংরক্ষণ করতে হবে।

মুঠোফোনটি বৈধ হলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে এনইআইআর সিস্টেমে নিবন্ধিত হয়ে যাবে।

মুঠোফোনের বার্তা অপশনে গিয়ে ইংরেজিতে কেওয়াইডি<স্পেস>পনের ডিজিটের আইএমইআই নম্বরটি লিখতে হবে। যেমন : KYD 345612789045123। আইএমইআই নম্বরটি লেখার পর ১৬০০২ নম্বরে পাঠাতে হবে। ফিরতি বার্তায় মুঠোফোনের বৈধতা সম্পর্কে জানা যাবে।

নৈতিক সংবাদ/এমবিবি